ওয়ার্কশপ অন ইনোভেশন উইথ বিগ ডেটা-অ্যানালাইটিকস, আইওটি এবং মোবাইল

 Home / ওয়ার্কশপ অন ইনোভেশন উইথ বিগ ডেটা-অ্যানালাইটিকস, আইওটি এবং মোবাইল

ওয়ার্কশপ অন ইনোভেশন উইথ বিগ ডেটা-অ্যানালাইটিকস, আইওটি এবং মোবাইল

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়াম’ এ ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম’ ওয়ার্কশপ অন ইনোভেশন উইথ বিগ ডেটা-অ্যানালাইটিকস, আইওটি এবং মোবাইল’ শীর্ষকএকটি ওয়ার্কশপের আয়োজক করে।  ওয়ার্কশপে রিসোর্স পার্সন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সল্যুশনস আর্কিটেকচার এর ডিরেক্টর জনাব মোহাম্মদ এম জামান। তিনি বিগ ডেটা এবং ইন্টারনেট অব থিংসকী, বিগ ডেটা দিয়ে কী কী করা সম্ভব, স্মার্ট সিটি তৈরিতে বিগ ডেটা কিভাবে কাজে লাগানো যায়,  বিগ ডেটা ইনোভেশন প্রসেস, ইনোভেশন লাইফ সাইকেল, ইনোভেটিভ চিন্তাকে কিভাবে পূর্ণতা দেয়া যায় প্রভৃতি বিষয়ে বিশদ আলোচনা করেন। তিনি একটি স্মার্ট সিটি বর্ণনা করেন যেখানে মানুষের গতিবিধি, ট্রাফিক জ্যাম, সন্ত্রাসি সনাক্তকরণ, অপরাধীদের গতিবিধি নজরদারি করা সহ নিরাপত্তা বিষয়ক বিভিন্ন প্রয়োজনে বিগ ডেটা এবং আইওটি এর ব্যবহার প্রসঙ্গে আলোকপাত করেন। ওয়ার্কশপের শেষ অংশে অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন জনাব জামান।

ওয়ার্কশপে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, এ টু আই এর পলিসি অ্যাডভাইজর জনাব আনীর চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘ইনোভেটিভ আইডিয়া গুলো সব সময় তরুন সমাজের কাছ থেকেই আসে। তরুন ইনোভেটরদের সহযোগিতা করার লক্ষ্যে এ টু আইএর‘সার্ভিস ইনোভেশনফান্ড’নামে একটি প্রজেক্ট আছে।এই ফান্ড সেই সব ইনোভেশনকে ফান্ডিং করে যে সব ইনোভেশন মানুষের সময় ও অর্থের খরচ এবং পরিশ্রম কমায়। জনাব আনীর চৌধুরী আরও বলেন এ টু আই ইনোভেটিভ আইডিয়া গুলো খুঁজে বের করে সেগুলো কাজে লাগানোর ব্যাপারে ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম’ এর সাথে কাজ করতে আগ্রহী।

এন্টারপ্রাইজ পার্টনার ডেটাসফট এর ডিরেক্টর এবং সিওও জনাব এম মাঞ্জুর মাহমুদ বলেন, ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরামকে একটি কার্যকরী ফোরামে পরিনত করতে সহায়তা করার জন্যই ডেটা সফট এন্টারপ্রাইজ পার্টনার হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। ডেটাসফট ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম’ এর মাধ্যমে ইনোভেটিভ আইডিয়া গুলোকে সব রকম সহায়তা করবে বলে আশ্বাস দেন তিনি। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি এ টু আই এর ডিরেক্টর (ইনোভেশন) জনাব মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম এর মত যারা ইনোভেশন নিয়ে কাজ করবে সেসব অর্গানাইজেশন তথা উদ্যোগের সাথে এ টু আই সব সময় যুক্ত থাকবে’। এছাড়া এ টু আই এর ইনোভেশন ল্যাব সম্পর্কে কথা বলেন তিনি।

আয়োজক হিসেবে ‘বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম’ ও ‘স্পেস অ্যাপ্স বাংলাদেশ’ এর প্রধান জনাব আরিফুল হাসান অপু উদ্বোধনী বক্তৃতায় বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সর্বশেষ আবিস্কার এবং অগ্রগতি সম্পর্কে ছাত্রছাত্রী এবং তরুন ও নতুন উদ্যোক্তাদের অবহিত করা বাংলাদেশ আইসিটি ইনোভেশন ফোরাম এর অন্যতম লক্ষ্য। বিগ ডেটা অ্যানালাইটিকস, ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) কী, এর ব্যবহার আমাদের জীবন যাত্রায় এবং ভবিষ্যতের তথ্যপ্রযুক্তি প্রফেশনালদের ক্যারিয়ারে কী প্রভাব ফেলবে প্রভৃতি বিষয় সম্পর্কে জানাতেই এই ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয়েছে’।

ওয়ার্কশপে আরও বক্তব্য রাখেন এস এপি ইউনিভার্সিটি অ্যালায়েন্স এর প্রধান জনাব রাহুল সাচ দেব, সিলিকন ভ্যালি ভিত্তিক ইনোভেশন কোম্পানি এস আর আই আই এর প্রেসিডেন্ট জনাব ক্রিসশিম,ইএমকে সেন্টার এর সিইও জনাব এম কে আরেফ এবং এ টু আই এর ইনোভেশন এক্সপার্ট জনাব ফারুক আহমেদ জুয়েল। এই ওয়ার্কশপ আয়োজনে স্পন্সর হিসাবে ছিল ‘ইএমকে সেন্টার’, এন্টারপ্রাইজ পার্টনার ‘ডেটাসফট’ এবং সহযোগিতায় ছিল ‘স্পেস অ্যাপ্স বাংলাদেশ’, ‘ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং সেন্টার’এবং ‘ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’।